পদ্মা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় সুজানগরে দশটি ড্রেজার ধ্বংস, গ্রেফতার তিন

দৈনিক নতুন বিশ্ববার্তা অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৪২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০

সুজানগর প্রতিনিধি ঃ পাবনার সুজানগরে পদ্মা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকালে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে দশটি ড্রেজার ধ্বংস করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় বালু উত্তোলন ও পরিবহনের অপরাধে আরও তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো ফরিদপুর জেলার গুরদিয়া গ্রামের ওমর আলী (৪০), বোয়ালমারী গ্রামের বিল্লাল হোসেন (২৫) ও রাজবাড়ী জেলার ওরাকান্দা গ্রামের স্বপন হোসেন (২৬)। গতকাল সোমবার দুপুরে সুজানগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রওশন আলী ওই অভিযান পরিচালনা করেন।
উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, সরকারি নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে দীর্ঘদিন কিছু সংখ্যক অসাধু প্রভাবশালী বালু ব্যবসায়ী পদ্মা নদীর সাতবাড়ীয়া, নারুহাটি, তারাবাড়ীয়া, হাজারবিঘারচর, রাইপুর, নাজিরগঞ্জ, বড়খাপুর, হাসামপুর, মহনপুর, মহব্বতপুর ও কামারহাটসহ অন্তত ৩০টি পয়েন্ট থেকে অবৈধভাবে শক্তিশালী ড্রেজার দিয়ে লক্ষ লক্ষ ঘনফুট বালু উত্তোলন ও বিক্রি করে আসছিল। ওই দিন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সুজানগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রওশন আলীর নেতৃত্বে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ বায়েজীদ বিন আখন্দ ও মোঃ নাজমুস সাদাত রতœ সাধারণ পুলিশ, নৌ-পুলিশ ও আনসার সদস্যদের সহায়তায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে দশটি ড্রেজার ধ্বংস করে। সেই সঙ্গে এ সময় বালু উত্তোলন ও পরিবহনের অপরাধে আরও তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ বায়েজীদ বিন আখন্দ বলেন গ্রেফতারকৃত ওই তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে বালু ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইনে মামলা হয়েছে। তাদের ওই দিনই আদালতে সোপর্দ করা হয়। সুজানগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রওশন আলী বলেন, পদ্মা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে এটি দ্বিতীয় দফা অভিযান। এর আগে গত ৪ সেপ্টেম্বর একইভাবে অভিযান পরিচালনা করে একটি ড্রেজার ধ্বংস এবং একটি বলগেট বিকল করা হয়। অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।