পাবনা-৪ আসনের উপ-নির্বাচনে সৎ ব্যাক্তি বীরমুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাসকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করুন -সাহাবুদ্দিন চুপ্পু

দৈনিক নতুন বিশ্ববার্তা অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৪২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০

পিপ : আওয়ামীলীগের কেন্দ্রিয় উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এবং বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. সাহাবুদ্দিন চুপ্পু আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিতব্য পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী -আটঘরিয়া) আসনে উপ-নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাসকে নৌকা মার্কায় সিল দিয়ে বিপুল ভোটে জয়ি করা আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, আওয়ামীলীগ মানে মানুষের মুক্তি, দেশের উন্নয়ন এবং জনগনের বিশ্বাস।
মানবতার নেত্রি শেখ হাসিনা বীরমুক্তিযোদ্ধা সৎ মানুষ নুরুজ্জামান বিশ্বাসকে দলীয় মনোনয়ন দিয়ে অত্যন্ত বিচক্ষনতার পরিচয় দিয়েছেন। যে কারণে দলের প্রতিটি নেতাকর্মি ঐক্যবদ্ধ হয়ে তার জন্য সকাল সন্ধ্যা প্রচারণা চালাচ্ছেন। তিনি আরও বলেন, পাবনার মানুষ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞ। না চাইতেই রেলপথ, মেরিন একাডেমি, পাবনা মেডিকেল, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ বহু উন্নয়ন করেছেন। এ ছাড়া দেশের সব চেয়ে বড় মেগা প্রকল্প রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প পাবনার ঈশ্বরদীতে স্থাপন করেছেন। তাই সময় এসেছে এবারের উপ-নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাসকে ভোট দিয়ে কিছুটা হলেও সে ঋণ পরিশোধ করা।
গতকাল বুধবার দুপুরে বার্তা সংস্থা পিপ‘র সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে আওয়ামীলীগের কেন্দ্রিয় উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, দুর্নীতি দমন কমিশনের সাবেক কমিশনার, সাবেক সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. সাহাবুদ্দিন চুপ্পু এ সব কথা বলেন।
মো. সাহাবুদ্দিন চুপ্পু বলেন, সকল বিভেদ ভুলে নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করতে ভোটের দিন ভোর থেকেই নেতাকর্মীদের বাড়ী বাড়ী যেতে হবে। পাবনা- ৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামীলীগ প্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা সৎ ব্যাক্তি নুরুজ্জামান বিশ্বাস বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে প্রমান করবে আওয়মীলীগের জনপ্রিয়তা আগের চেয়ে আরও বেড়েছে। তিনি বলেন, যখন করোনায় সারা পৃথিবী কাহিল তখন শেখ হাসিনার দুদর্শি নেতৃত্বের কারণে দেশের একটি মানুষও না খেয়ে থাকেনি। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর যোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা সারা দেশে যে উন্নয়ন করেছেন তার কারণে ঘরে ঘরে আওয়ামীলীগের প্রার্থী আবারও বিজয়ী হবে। আওয়ামীলীগের প্রতিটি নেতাকর্মির দায়িত্ব এখন এই সব ভোটারদের গুছিয়ে কেন্দ্রে নিয়ে আসা।